ওয়েবসাইট দিয়েই গড়ে তুলুন আপনার প্রতিষ্ঠানের ব্র্যান্ড আইডেন্টিটি

Spread the love

প্রিয় পাঠক, বিশ্বায়নের এই সময়ে আপনার ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের সম্প্রসারণের জন্য এই বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আর্টিক্যালটি বিস্তারিত পড়ার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।

আপনার আশেপাশে একটু লক্ষ্য করলেই দেখতে পাবেন, যে সকল প্রতিষ্ঠান সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করছে, গ্রাহক যাদের উপর আস্থা রাখেন, তাদের প্রত্যেকেরই নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট আছে।

আমরা সব সময়ই জানি, মানব জীবনে আয়ের দুটি রাস্তা রয়েছে। ১ চাকরি করা এবং ২ ব্যবসা করা।
ইন্টারনেটের এই যুগে আমাদের বাস্তব জীবনের মত অনলাইনেও আমরা চাকরি এবং ব্যবসা দুটোই করতে পারি। যার জন্য শুধুমাত্র প্রয়োজন, সঠিক কর্মপরিকল্পনা, প্রচণ্ড ইতিবাচক ইচ্ছাশক্তি ও আগ্রহ।

আপনার যখন কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসা থাকবে তখন স্বাভাবিকভাবেই আপনি চাইবেন আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার যেন একটি ‘ব্র্যান্ড আইডেন্টিটি’ তৈরি হয়। বর্তমান সময়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসা সংক্রন্ত সকলেই এই বিষয়টিকে খুবই গুরুত্ব প্রদান করে থাকেন। কারন, এর মাধ্যমে গ্রাহকের আস্থা অর্জন করা যায় খুব সহজেই। এই জন্য আপনাকে প্রতিষ্ঠানের জন্য বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে হবে। যার মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার একটি নিজস্ব ‘ওয়েবসাইট’ থাকা। কারন, ওয়েবসাইট হচ্ছে একটি প্রতিষ্ঠানের ‘ডিজিটাল আইডেন্টিটি’।

যেমন আপনার একটি সেবা বা পণ্যের বিষয়ে গ্রাহককে সহজে জানাতে চান অথবা সেবা বা পণ্যটির বিভিন্ন বিষয় বা ফিচার নিয়ে গ্রাহককে সংক্ষিপ্ত আকারে বা বিস্তারিতভাবে অবহিত করতে চান, তখন আপনার ওয়েবসাইটে সেবা বা পণ্যের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো তুলে ধরুন। গ্রাহক তার মোবাইল ফোন বা কম্পিউটারে বসে উক্ত সেবা বা পণ্যের সব কিছু সহজেই দেখতে পারবেন।

এবার আসুন, শুরুতেই একটু জানি, আপনি কেন ওয়েবসাইট তৈরি করবেন?
একটি ওয়েবসাইট হচ্ছে আপনার যে কোন প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার অনলাইন পরিচয় বা আইডেন্টিটি। যে কোন কোম্পানি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সংগঠন বা সংস্থা ইত্যাদি সকল প্রতিষ্ঠান তাদের নামে ওয়েবসাইট করে থাকে যাতে করে ইন্টারনেটের মাধ্যমে তাদের সম্পর্কে জানা যায় এবং তাদের পরিচয়, বিভিন্ন বিষয়, সেবা অথবা সার্ভিস সম্পর্কে মানুষ যেন সহজেই জানতে পারে। এই জাতীয় ওয়েবসাইট গুলো হচ্ছে মূলত প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট।
👉আপনার ব্যবসার Dynamic Website নির্মাণের করার জন্য ‘ভার্সডসফট’ সবসময় আছে আপনার পাশে।
কিন্তু প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটের বাইরেও কিন্তু আরও প্রচুর ওয়েবসাইট হয়, যেগুলো হচ্ছে ব্যক্তিগত বা ব্যবসায়িক। এই ধরণের ওয়েবসাইটগুলোতে সাধারণত বিভিন্ন টিপস, ট্রিক, আইডিয়া, বিনোদন, খবর ইত্যাদি বিষয় দেয়া হয়ে থাকে। এই গুলোকে আপনি অ-প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইটও বলতে পারেন। এই ধরনের ওয়েবসাইটগুলো করা হয় সাধারণত আর্কাইভের জন্য সখের বসে অথবা দীর্ঘসময়/লং টাইম ফল ভোগ করার জন্য।

👉আপনার ওয়েবসাইট নির্মাণ করতে প্রয়োজনে আমাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করুন: ০১৭২৩-৮২১৪৬৪ অথবা ই-মেইল করুন: versedsoft@gmail.com এর মাধ্যমে।

যেমন ধরুন, বাংলা ভাষায় বর্তমানে সবচেয়ে বড় টেকনোলোজি সাইট হচ্ছে ‘টেকটিউনস’। এটা কিন্তু কোন প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট নয়। এটি হচ্ছে টেকনোলজি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট বা ব্লগ যেখানে বিভিন্ন মানুষ বা লেখকেরা ‘টেকটিউনস’ কর্তৃপক্ষের ‘শর্ত মেনে’ টেকনোলজি বিষয়ে তাদের বিভিন্ন জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা শেয়ার করে। এতে করে প্রতিদিন হাজার হাজার লোক টেকটিউনসে প্রবেশ করে বিভিন্ন বিষয় জানার জন্য, শেখার জন্য। তাহলে টেকটিউনস হচ্ছে একটি নন-প্রাতিষ্ঠানিক ওয়েবসাইট।

ঠিক একই ভাবে আপনিও যদি এই ধরনের একটি ওয়েবসাইট প্রতিষ্ঠা করে ধৈর্য্য ধরে সঠিক জায়গায় নিয়ে আসতে পারেন তাহলে আপানার বাকী জীবন এই ওয়েবসাইট দিয়েই চালিয়ে দিতে পারবেন যদি আপনি বুদ্ধিমান হন।

👉আপনার ব্যবসার Digital Identity তৈরি করার জন্য ‘ভার্সডসফট’ সবসময় আছে আপনার পাশে।
আলোচনার এই পর্যায়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রসঙ্গ উল্লেখ না করলেই নয়। আর সেটি হচ্ছে- ফেসবুক দিয়েইতো আপনি আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার মার্কেটিং করতে পারেন। পণ্য বিক্রি করতে পারেন। তাহলে, টাকা খরচ করে ওয়েবসাইট নির্মাণ করার দরকার কি? আবার অনেকে না বুঝে বা না জেনে একটি ‘বড় ভুল’ করে থাকেন। আর তা হচ্ছে নিজের ব্যবসা, প্রতিষ্ঠান বা আয়ের জন্য ‘নিজস্ব ওয়েবসাইট’ নির্মাণ না করে ‘ফ্রি প্ল্যাটফর্ম’ ব্যবহার করেন। ‘ফ্রি প্ল্যাটফর্ম হচ্ছে- ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার, ব্লগস্পট, ব্লগসাইট ইত্যাদি। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে এই ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোয় অবস্থিত সেই ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসা সংক্রান্ত পেইজ বা আইডিটি যে কোন সময় যে কোন কারনে বন্ধ হয়ে যেতে পারে, বেদখল হয়ে যেতে পারে, বেহাত হয়ে যেতে পারে বা হ্যাক হয়ে যেতে পারে, যা আসলেই নিরাপদ নয়। কারণ, সেগুলোর মালিকতো অন্য কোন ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান, আপনি নন। দেখুন তারা কিন্তু ঠিকই আপনার গুরুত্বপূর্ণ সময় কাজে লাগিয়ে আপনার মাধ্যমে আপনারই অজান্তে তাদের ব্যবসা করে যাচ্ছে। এই ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোতে আপনি মার্কেটিং করছেন, সময় দিচ্ছেন এমনকি কম-বেশি অর্থও বিনিয়োগ করছেন। অথচ এই ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোকে আপনার ব্যবসার মূল মাধ্যম না বানিয়ে সহযোগী মাধ্যম বানালে, ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোতে আপনার ওয়েবসাইটের মার্কেটিং করলে আপনার বা আপনার প্রতিষ্ঠানেরই বেশি লাভ হতো। ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোতে অর্থ বিনিয়োগ (ডিজটাল মার্কেটিং/পেইড প্রমোশন/বুস্ট) না করে বরং আপনার ওয়েবসাইটের পেছনেই অর্থও বিনিয়োগ করলে তা আপনারই থাকতো।

তাহলে একবার ভেবে দেখুন, দীর্ঘ একটি সময় আপনি এই ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলো ব্যবহার করে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলেন বা করার চেষ্টা করছিলেন। যখনই সেই ফ্রি প্ল্যাটফর্মের পেইজ বা আইডিটি যে কোন কারণে বন্ধ হয়ে যাবে তখন আপনি কি করবেন? পাশাপাশি আরও একটি বিষয় দেখুন, এই ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোকে আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার চাহিদানুযায়ি কাস্টমাইজও করা যায় না। আবার যে কেউ চাইলে শত্রুতা বশতঃ ফ্রি প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার নামে আরও নতুন ফেসবুক পেইজ বা আইডি খুলে আপনার সুনাম নষ্ট করতে পার। তখন কি করবেন? তখন নিশ্চিতভাবে আপনার মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়বে না? আপনাকে কিন্তু আবারও শুরু থেকেই শুরু করতে হবে। তাই নিজেই সিদ্ধান্ত নিন। আপনার ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের জন্য কি ‘ফ্রি প্ল্যাটফর্ম’ ব্যবহার করে সবসময় ‘ঝুঁকিতে’ থাকবেন? নাকি অন্য কোথাও অর্থও বিনিয়োগ না করে বরং সে অর্থ দিয়ে নিজস্ব ডায়নামিক একটি ওয়েবসাইট নির্মাণ করে ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোকে আপনার সুবিধামতো উপায়ে কাজে লাগিয়ে আপনার ব্যবসা পরিচালনা করবেন? যাতে আপনার প্রতিষ্ঠানের ভিত্তি মজবুত হওয়ার পাশাপাশি চমৎকার একটি ব্র্যান্ড আইডেন্টিটি তৈরি হয়ে উঠবে।

রুচিশীল ও বিচক্ষণ গ্রাহক মাত্রই কোন প্রকারের প্রতারণার স্বীকার হতে চান না, বরং তারা একটি প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার নিজস্ব নামে যে ওয়েবসাইট আছে সেটিকে বিশ্বাস করেন, সেটি সার্চ করে ব্যবসা সম্পর্কে জানেন। তারা ফ্রি প্ল্যাটফর্মগুলোকে বিশ্বাস করেন না। বরঞ্চ ওয়েবসাইটের উপরই বেশি আস্থা রাখেন। এই বিষয়টি খুব সিম্পল মনে হলেও এটি আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার ‘ব্র্যান্ড আইডেন্টিটি’ তৈরিতে খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ।

আপনার আশেপাশে একটু লক্ষ্য করলেই দেখতে পাবেন, যে সকল প্রতিষ্ঠান সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করছে, গ্রাহক যাদের উপর আস্থা রাখে, তাদের প্রত্যেকেরই নিজস্ব একটি ওয়েবসাইট আছে।
👉আপনার ব্যবসার Dynamic Website নির্মাণের করার জন্য ‘ভার্সডসফট’ সবসময় আছে আপনার পাশে।

কোম্পানি প্রোফাইল ওয়েবসাইট কেন প্রয়োজন?

আপনি নতুন প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসা শুরু করেছেন অথবা দীর্ঘ সময় ধরে প্রতিষ্ঠান আছে বা ব্যবসা করছেন? তাহলে আপনার একটি কোম্পানি প্রোফাইল থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ব্যাপার।

👉আপনার ওয়েবসাইট নির্মাণ করতে প্রয়োজনে আমাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করুন: ০১৭২৩-৮২১৪৬৪ অথবা ই-মেইল করুন: versedsoft@gmail.com এর মাধ্যমে।

একটি মানসম্মত কোম্পানি প্রোফাইল আপনার ক্রেতার অথবা যদি কেউ আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসায় বিনিয়োগ করতে চায় তাদের প্রথম ইম্প্রেশনের জন্য একটি ডায়নামিক ওয়েবসাইট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই প্রতিযোগিতার বাজারে একটি ভালো ও উন্নতমানের কোম্পানি প্রোফাইল ওয়েবসাইট আপনাকে অনেক বেশি এগিয়ে রাখবে। অনেকেই বলে থাকেন, কোম্পানি প্রোফাইল ওয়েবসাইট অনেকটা সিভির মত। সত্যি এটি আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসার ব্র্যান্ড আইডেন্টিটি তৈরি করে।

কোম্পানি প্রোফাইল কি?
কোম্পানি প্রোফাইল হচ্ছে আপনার কোম্পানি সম্পর্কে একটি প্রফেশনাল পরিচিতি। আপনার গ্রাহক বা অডিয়েন্সকে আপনার পণ্য বা প্রোডাক্ট এবং সার্ভিস সম্পর্কে জানানো। এর সাথে সাথে আপনার শক্তিশালী পয়েন্ট, কাজের অতীত রেকর্ড এবং কেন আপনার কোম্পানির সাথে অন্যকেউ কাজ করবে। মোট কথা হচ্ছে আপনার কোম্পানি সম্পর্কিত যাবতীয় সব তথ্য এখানে সাজানো থাকবে।

আপনার বর্তমান এবং নতুন ক্রেতা আপনার কোম্পানি প্রোফাইল দেখবে সাথে সাথে বিভিন্ন প্রয়োজনে বিনিয়োগকারী বা ইনভেস্টর, সার্ভিস প্রদানকারী সংস্থা, সাপ্লাইয়ারস, অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠান, বিজনেস পার্টনার ইত্যাদি আপনার কোম্পানি প্রোফাইল দেখবে।
👉আপনার ব্যবসা বা কোম্পানি প্রোফাইল ওয়েবসাইট তৈরির জন্য ‘ভার্সডসফট’ সবসময় আছে আপনার পাশে

কোম্পানি প্রোফাইলকে অবহেলা করার কোন সুযোগ নেই যেখানে কোম্পানি প্রোফাইল আপনার প্রতিষ্ঠান বা ব্যবসা সম্পর্কে একটি ইতিবাচক ধারণা তৈরি করছে, আপনাকে সামনের দিকে নিয়ে যাচ্ছে এবং আপনার কোম্পানির প্রফেশনাল ইমেজ তুলে ধরছে। এটা শক্তিশালিভাবে বলা যায় কোম্পানি প্রোফাইল একটি শক্তিশালি মার্কেটিং টুল যা আপনার বিজনেসকে প্রমোট করবে।

আপনার ওয়েবসাইট নির্মাণ করতে প্রয়োজনে আমাদের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করুন: ০১৭২৩-৮২১৪৬৪ অথবা ই-মেইল করুন: versedsoft@gmail.com এর মাধ্যমে।

সকল ধরনের পরামর্শ ও সেবা দিতে আমরা সর্বদা প্রস্তুত।

১ Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *