ইউরোপে ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে মেটা

Spread the love

সম্প্রতি ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (EU) কে ইউরোপ থেকে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম এর সেবা সরিয়ে নেওয়ার হুমকি দিয়েছে মার্ক জাকারবার্গ এর মেটা। মূলত ব্যক্তিগত তথ্য প্রসেস করার বিষয়ে ইউরোপ বাধা প্রদান করার কারণে এমন মন্তব্য করে মেটা।

US Securities and Exchange Commission এর একটি রিপোর্টে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম বন্ধের বিষয়ে পরিস্কার জানিয়ে দেয় মেটা। উক্ত রিপোর্টে মেটা দাবি করে যে নিজেদের টার্গেটেড এড ব্যবসা ঠিকমত চালিয়ে নিতে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রে ডাটা প্রসেস করার বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

মেটা জানায়, “আমরা যদি কার্যক্রম চলমান আছে এমন দেশ ও অঞ্চলসমূহের মধ্যে ডাটা ট্রান্সফার করতে না পারি বা একাধিক প্রোডাক্ট বা সার্ভিসের মধ্যে ডাটা শেয়ার করতে ব্যার্থ হই, তবে এটি আমাদের সেবা প্রদানকে ব্যাহত করতে পারে, যা আমরা আমাদের সার্ভিস বা টার্গেট এডস প্রদানে ব্যবহার করে থাকি।”

সমস্যা হলো ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এর প্রক্রিয়াধীন নীতিমালা অনুযায়ী সিটিজেনদের ডাটা শুধুমাত্র ইউরোপে অবস্থিত সার্ভারে জমা থাকবে, যা যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এর পূর্ববর্তী ডাটা শেয়ারিং সুবিধাকে বাতিল করে দেবে।

এই কারণে মেটা বেশ সমস্যায় পড়েছে তাদের সার্ভিসসমূহের মধ্যে ডাটা শেয়ারিং নিয়ে। তবে মেটা আশা করছে ২০২২ সালে এই নীতিতে পরিবর্তন আসতে পারে।

উক্ত নীতিতে যদি কোনো পরিবর্তন না আসে তবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোতে মেটা’র কার্যক্রমে ব্যাঘাত ঘটতে পারে।

নতুন ডাটা ট্রান্সফার ফ্রেমওয়ার্ক ব্যবহার সম্ভব না হলে ও স্ট্যান্ডার্ড কনট্রাকচুয়াল ক্লজেস (SCCs) ব্যবহার যদি সম্ভব না হয়, বা ইউরোপ থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ডাটা ট্রান্সফারের অন্য কোনো বিকল্প মাধ্যম যদি খুঁজে বের করা না যায়, তবে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম সহ উল্লেখযোগ্য অনেক সার্ভিস বন্ধ করে দিতে হতে পারে বলে জানায় মেটা।

👉আপনার ব্যবসার Digital Identity তৈরি করার জন্য ‘ভার্সডসফট’ সবসময় আছে আপনার পাশে।

ইউরোপে উক্ত বিষয়ের জন্য মেটা’র ব্যবসায়িক ও আর্থিক ক্ষতির বিষয়টি সরাসরি জানিয়েছে মেটা, যার কারণে কার্যক্রম পর্যন্ত বন্ধ করতে হতে পারে।

মজার ব্যাপার হলো প্রতিষ্ঠানটি এনক্রিপটেড মেসেঞ্জার, হোয়াটসঅ্যাপ এর কোনো কথা উল্লেখ করছেনা। উক্ত সমস্যার কারণে শুধুমাত্র ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম বন্ধের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হতে পারে বলে জানায় প্রতিষ্ঠানটি। তবে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দেশসমূহে বহুল ব্যবহৃত যোগাযোগ মাধ্যম, হোয়াটসঅ্যাপ কে যুক্তিতর্কে মেটা ব্যবহার করছেনা যা একটি অদ্ভুত বিষয়।

এনক্রিপটেড মেসেজিং সার্ভিস প্রদান করায় ও কোনো ধরনের বিজ্ঞাপন না থাকায় ইউরোপিয়ান ও আমেরিকান ডাটা সংক্রান্ত এই ধরনের সমস্যা নেই হোয়াটসঅ্যাপ এর ক্ষেত্রে।

তবে পরিস্থিতি যা ই হোক না কেনো, ইউরোপে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম সম্পূর্ণরুপে বন্ধ করে দেওয়ার বিষয়টি বেশ অদ্ভুত ও অবাস্তব শোনায়। ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দেশগুলো থেকে মোটা অংকের রেভিনিউ নিয়ে আসে ফেসবুক ও ইন্সটাগ্রাম।

এতো বিশাল অংকের অর্থ হাত ছাড়ার মত কাজ যদি মেটা করেও থাকে, তবে তার মাশুল গুণতে হবে ২৫ শতাংশ মার্কেট ভ্যালু হারানোর মাধ্যমে যা ঐতিহাসিক একটি ব্যাপার হয়ে যাবে।

আপাতত ধারণা করা হচ্ছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের টনক নাড়াতে এই ধরনের হুমকি প্রদান করেছে মেটা। এখন দেখার বিষয় হচ্ছে উভয় পক্ষের মধ্যে কোন পক্ষে তাদের যুক্তিতর্কে অটল থাকে ও বিজয়ী হয়।

Source: banglatech24.com

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.